logo
logo
news image

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল জাতিসংঘে কি বল্লেন

একাদশ জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক করতে সরকারের ওপর চাপ প্রয়োগের ধারাবাহিক চেষ্টার অংশ হিসেবেই জাতিসংঘে গেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তবে এবারের চেষ্টাটি একটু ভিন্ন ধরনের। গত বৃহস্পতিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) নিউইয়র্কের স্থানীয় সময় সকালে জাতিসংঘের রাজনীতি বিষয়ক সহকারী মহাসচিব মিরোস্লাভ জেনকার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বিএনপির মহাসচিব চারটি বিষয়ে জানিয়েছেন।  এগুলো হলো,  রোহিঙ্গা ইস্যু; খালেদা জিয়ার কারাবরণ ও তার বর্তমান অবস্থা; দেশের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর অ্যাক্টিভিটি, শীর্ষ কয়েকজন নেতার প্রোফাইল এবং ২০১৪ সালে তারানকোর সঙ্গে বৈঠকের বিষয়বস্তু। বিএনপি মহাসচিবের একটি ঘনিষ্ঠ সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এই প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘মির্জা ফখরুল সুনির্দিষ্টভাবে কী বলেছেন, তা বলতে পারবো না। তবে তিনি দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়েই আলোচনা করেছেন। তিনি ফিরে এলে নিশ্চয়ই বিস্তারিত জানাবেন।’

এর আগে শনিবার ফরিদপুরে এক অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, ‘জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস তাদের ঢাকাস্থ অফিসের মাধ্যমে দাওয়াত পাঠিয়েছেন। আর এ দাওয়াত পেয়েই আমাদের (বিএনপি) মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জাতিসংঘে গিয়ে সংস্থাটির কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন।’

উল্লেখ্য, গত ১১ সেপ্টেম্বর রাত ১টা ৪০ মিনিটে অনেকটাই নীরবে নিউইয়র্কের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল। ফিরবেন আগামী দুই-একদিনের মধ্যেই। জাতিসংঘের রাজনীতি বিষয়ক সহকারী মহাসচিব মিরোস্লাভ জেনকার সঙ্গে সাক্ষাতের সময় মির্জা ফখরুলের সঙ্গে  আরও ছিলেন বিএনপির দুই নেতা তাবিথ আউয়াল ও লন্ডন প্রবাসী হুমায়ুন কবির। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীরও যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার কথা ছিল। তবে, তিনি যাননি ব্যক্তিগত কারণে।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top