logo
logo
news image

জাবিতে দুই হলের সংঘর্ষ বিলম্বে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

নুুর হাছান নাঈম, জাবি প্রতিনিধিঃ ইভটিজিংয়ের সূত্র ধরে মঙ্গলবার মধ্যরাতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মীর মশাররফ হোসেন হল ও আল বেরুনি হলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় বুধবার সকাল নয়টায় অনুষ্ঠিত জীববিজ্ঞান অনুষদের ভর্তি পরীক্ষা আটকে দিয়েছিল আল বেরুনি হলের শিক্ষার্থীরা। পরে প্রশাসন ও শাখা ছাত্রলীগের নেতাদের হস্তক্ষেপে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ ও পুরাতন কলা ও মানবিকী অনুষদে অনুষ্ঠিত ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ের পরে শুরু হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছেন।
সকাল সোয়া নয়টার দিকে প্রক্টর সিকদার মো. জুলকারনাইন বলেন, এইমাত্র পরীক্ষার প্রশ্নপত্র এবং শিক্ষার্থী ভিতরে প্রবেশ করেছে। আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে।
এর আগে গতকাল মধ্যরাতের সংঘর্ষে প্রায় ৩০ জনের অধিক শিক্ষার্থী আহত হয়েছে এবং গুরুতর আহত  ১০-১৫ জন শিক্ষার্থীকে সাভারে এনাম মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারের কর্তব্যরত চিকিৎসক আবু জাফর মো. সালেহ। ।
তবে টেকনিকাল মেডিকেল অফিসার জাকারিয়া জানান, আহতের সংখ্যা কমপক্ষে অর্ধশত হবে। আহতদের অধিকাংশই আল বেরুনি হলের শিক্ষার্থী  এবং শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী বলে জানা গেছে।
প্রাথমিক ভাবে জানাা যায়, রাত দশটার দিকে এক নারী শিক্ষার্থীকে মীর মশাররফ হোসেন হলের ৪৫ ব্যাচের দু-তিনজন শিক্ষার্থী উত্যক্ত করে।
ওই নারী শিক্ষার্থী ফোন করে বিষয়টি আল-বেরুনি হলে থাকা তার বন্ধুদের জানালে ওই হলের ৪৬ ব্যাচের কয়েকজন শিক্ষার্থী মীর মশাররফ হলের ওই শিক্ষার্থীদের কাছে বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চান। এসময় তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।
পরে রাত ১২টার দিকে মীর মশাররফ হোসেন হলের ৬০-৭০জন শিক্ষার্থী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আল- বেরুনি হলে এসে হামলা চালায়। এসময় দুই হলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ঘণ্টাব্যাপী দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ঘটে।
পরে শাখা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এসময় প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা উপস্থিত থাকলেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ব্যর্থ ছিলেন।
প্রক্টর সিকদার মো. জুলকারনাইন বলেন, আমরা এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। তবে ঘটনা পর্যবেক্ষণ করেছি। তদন্ত করে সুষ্ঠু ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top