logo
logo
news image

বিশ্বের সামরিক শক্তির তালিকায় বাংলাদেশ

সামরিক শক্তিতে যার দৌড় বেশি, বিশ্বে তার কর্তাগিরি তত বেশি। এ ছাড়া নিজের দেশের সুরক্ষার বিষয়টা তো আছেই। তাই সামরিক শক্তিতে এগিয়ে থাকার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশের দৌড়ঝাঁপের শেষ নেই। নিজেদের অন্যদের থেকে শক্তিশালী প্রমাণে সব লেগে থাকে নতুন মারণাস্ত্র আবিষ্কার ও বেচা-কেনার প্রতিযোগিতা।

এই পাল্লায় বিশ্বের কোন দেশ কতটা এগিয়ে তার তালিকা সম্প্রতি গ্লোবাল ফায়ারপাওয়ার.কমে প্রকাশিত গ্লোবাল ফায়ারপাওয়ার ইনডেক্সে ২০১৮ সালের বিশ্বের সেরা সেনাবাহিনীর তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।

এর অংশ হিসেবে দেশগুলোর মানবসম্পদ, প্রাকৃতিক সম্পদ, ভৌগোলিক গুরুত্ব, বিমান, নৌ ও সেনাবাহিনীর শক্তি ছাড়াও সেনাদের দক্ষতাকে বিবেচনায় নেওয়া হয়।

২০১৮ সালে সেরা ২৫টি দেশের মধ্যে জায়গা করে নেয় এশিয়ার ১১টি দেশ। কিন্তু সেই দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ নেই। ‍

যুক্তরাষ্ট্রের আছে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী সামরিক বাহিনী। এর পরেই বিশ্বে সামরিক শক্তির দিক দিয়ে দুই, তিন ও চার নম্বরে আছে রাশিয়া, চীন ও ভারত। আর এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান ৫৬তম। গত বছর এই তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৫৭।

এশিয়া ছাড়া সেরা পঁচিশে রয়েছে উত্তর আমেরিকার দুটি, ইউরোপের আটটি, আফ্রিকার দুটি, দক্ষিণ আমেরিকার একটি দেশ ও অস্ট্রেলিয়া।

তালিকার ২৫, ২৪, ২৩, ২২ ও ২১তম স্থানে যথাক্রমে কানাডা, তাইওয়ান, অালজেরিয়া, পোল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া।

২৫টি সেরা সেনাবাহিনীর তালিকার ২০, ১৯, ১৮, ১৭ ও ১৬তম স্থানে আছে ভিয়েতনাম, স্পেন, উত্তর কোরিয়া, পাকিস্তান ও ইসরায়েল।

পরমাণু অস্ত্রধর দেশ হওয়ার কারণে পাকিস্তান সেরা পঁচিশে রয়েছে বলে জানিয়েছে গ্লোবাল ফায়ারপাওয়ার।

তালিকার ১৫, ১৪, ১৩, ১২ ও ১১তম স্থানে রয়েছে ইন্দোনেশিয়া, ব্রাজিল, ইরান, মিসর ও ইতালি। দক্ষিণ আমেরিকার একমাত্র দেশ হিসেবে এই তালিকায় ব্রাজিলের নাম উঠে এসেছে।

৬ থেকে দশের মধ্যে রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, তুরস্ক ও জার্মানি।

এদিকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ বাংলাদেশ এই তালিকার ১৩৬টি দেশের মধ্যে ৫৬তম স্থানে রয়েছে। বাংলাদেশের সেনাবাহিনীর মোট সদস্য সংখ্যা দেখানো হয়েছে দুই লাখ ২৫ হাজার। সূত্রঃ ভোরেরপাতা

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top