logo
logo
news image

সাংবাদিকদের আতঙ্ক কাটাতে কাজ করব: তথ্যমন্ত্রী

ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট নিয়ে সাংবাদিকদের মধ্যে আতঙ্ক যাতে না থাকে সেই লক্ষ্যে কাজ করার কথা জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, ‘আপনাদের আতঙ্ক যাতে না থাকে সেই লক্ষ্যে আপনাদের পরামর্শ নিয়ে কাজ করব।’

রবিবার সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় এবং এর অধীন বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থার শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক সমন্বয় সভার শুরুতে এ বিষয়ে কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।
হাছান মাহমুদ বলেন, ‘সম্প্রচার আইনটি আমার পূর্বসূরি অনেক দূর এগিয়ে নিয়েছেন। সেই কাজ চলমান আছে। সমন্বয় সভায় আমরা এই বিষয়গুলো আলোচনা করব। গণমাধ্যমকর্মীদের সম্মান রক্ষার্থে আইনের সংশোধনের কাজটি চলছে। সাংবাদিক বন্ধুদের যাতে সম্মান রক্ষা পায় সেই লক্ষ্যেই আমরা কাজ করছি।’

‘আমরা সব ধরনের সমালোচনাকে সমাদৃত করি। আমি যখন পরিবেশমন্ত্রী ছিলাম তখন আমার মন্ত্রণালয় নিয়ে ডেইলি স্টার অনেক সমালোচনা করেছে। এমনকি মন্ত্রীর কার্টুন ছাপিয়েছে। কিন্তু আমরা তাদের পরিবেশ পদক দিয়েছি। অনেক সমালোচনার পরেও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপাকেও পরিবেশ পদক দিয়েছি।’

সমালোচনা পথচলাকে শানিত করে বলে মনে করেন তথ্যমন্ত্রী। বলেন, ‘তবে অন্ধ আর একপেশে সামালোচনা কল্যাণকর হয় না। সমালোচনাকে সমাদৃত করার সংস্কৃতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চালু করেছেন।’

‘কোনো দেশেকে এগিয়ে নিতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার দরকার হয়। ফলে আমাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টার সঙ্গে গণমাধ্যমের দায়িত্বও অনেক বেশি।’
দেশে অনলাইন গণমাধ্যমে বিরাট বিপ্লব ঘটেছে মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ আজকে বিভিন্ন গণমাধ্যমের যে বিকাশ, তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে হয়েছে। বাংলাদেশে অনলাইন গণমাধ্যম বিরাট বিপ্লব ঘটেছে। সোশ্যাল মিডিয়াতে বিপ্লব ঘটেছে। বাংলাদেশের যেখানে ২০০৮ সালে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ৮ লাখ, সেটি এখন ৯ কোটির কাছাকাছি। সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে প্রায় ৮ কোটি মানুষ।’

একজন শিশুর মনন তৈরি, একই সঙ্গে একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির মনন সঠিকভাবে প্রয়োগের ক্ষেত্রে গণমাধ্যমের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top