logo
logo
news image

সাইফউদ্দিনের ব্যাটে মান রক্ষা বাংলাদেশের

স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নেপিয়ারে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে টস জিতে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ দল। তবে শুরুর দিকে সুইংয়ের সঙ্গে লড়তে হয়। তামিম, লিটন, মুশফিকরা তা পারেননি। তবে মিডল অর্ডারে মিঠুনের ফিফটি আর শেষটায় মিরাজ-সাইফউদ্দিনদের ব্যাটে ২৩২ রান তুলেছে বাংলাদেশ।
তবে শুরুতেই ট্রেন্ট বোল্ট, ম্যাট হেনরিরা তামিমদের রুগ্ন রূপ বের করে ফেলে। তামিম, লিটনের ব্যাটিং দেখে স্পষ্ট নিউজিল্যান্ডে ভালো প্রস্তুতি ছাড়া খেলা দুষ্কর।

বাংলাদেশের ইনিংসে দ্বিতীয় ওভারে ৫ রানের মাথায় বোল্টের শিকার হয়ে ব্যক্তিগত ৫ রানে ফিরেন তামিম। নিজে মাত্র এক রান করে দলের ১৯ রানে বিদায় নেন লিটন দাস। ক্রিজে এসে দাঁড়াতে না দাঁড়াতে সাজঘরে ফেরেন মুশফিকও। তিনি করেন ১৪ বলে ৫ রান। ভরসা দেখা যাচ্ছিল বিপিএল জুড়ে খারাপ খেলা সৌম্য সরকারের ব্যাটে। কিন্তু তিনিও ২২ বলে ৩০ রান করে আশাটা মাটিচাপা দিয়ে ফিরে যান। দলকে ফেলে যান আরও চাপে।  

সেই চাপ সামলানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন এবং মাহমুদুল্লাহ। কিন্তু মিঠুনকে রেখে ১৩ রান করে বিদায় নেন মাহমুদুল্লাহ। পরে ব্যাটে নামা সাব্বিরও ১৩ রানে সাজঘরে ফেরেন। দলের রান তখন ৬ উইকেটে ৯৬। এরপর ব্যাট হাতে আশা দেখাচ্ছিলেন মিরাজ। কিন্তু তিনিও ২৭ বলে ২৬ রান করে ফিরে যান। আবার আশা হারা হয় বাংলদেশ।

অষ্টম উইকেট জুটিতে দারুণ ক্রিকেট খেলেন সাইফউদ্দিন এবং মোহাম্মদ মিঠুন। দু’জনে গড়নে ৮৪ রানের জুটি। ওই জুটিতেই মান বাঁচে বাংলাদেশ দলের। দলীয় ২১৫ রানে ব্যক্তিগত ৪১ রান করে ফিরে যান সাইফউদ্দিন। দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করা মিঠুন ৬২ রান করে ফারগুনরে বলে বোল্ড হন। পরে সাত বল থাকতে ২৩২ রানে থামে বাংলাদেশ।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে শুরুতে এ ম্যাচে দারুণ বোলিং করেন ম্যাট হেনরি এবং বোল্ট। শুরুর চার উইকেট ভাগ করে নেন এ দু’জন। শেষ পর্যন্ত বোল্ট পান তিন উইকেট। এছাড়া স্পিনার মিশেল সাটনার নেন তিনটি উইকেট। ফারগুসন এবং হেনরি দুটি করে উইকেট নেন।

বাংলাদেশ এ ম্যাচে এক স্পিনার ও তিন পেসার নিয়ে নেমেছে। পার্টটাইম বোলার দিয়ে ১০ ওভার বল করতে হবে মাশরাফিদের। সাকিবের জায়গা পূরণ করতে একজন ব্যাটসম্যান বেশি নিয়ে খেলছে বাংলাদেশ। এছাড়া বাংলাদেশের অন্যতম সেরা পেসার রুবেল হোসেন নেই একাদশে। তার জায়গায় পেস অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনকে রাখা হয়েছে একাদশে।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top