logo
logo
news image

ঘূর্ণিঝড় ফণী রূপ নিয়েছে ভয়াবহ তীব্রতায়

বঙ্গোপসাগরে প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী আরো শক্তি সঞ্চয় করে হারিকেনের তীব্রতাসম্পন্ন তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। ইতোপূর্বে শনি অথবা রোববার আঘাত হানার কথা বলা হলেও ঘূর্ণিঝড়ের গতি বৃদ্ধি পাওয়ায় তা শুক্রবার রাতে অথবা শনিবার সকালে আঘাত হানতে পারে।

ভারতের আবহাওয়া অফিস বলছে, ঘণ্টায় ১৬ কিলোমিটার গতিতে ওড়িশা উপকূলের দিকে অগ্রসর হতে থাকা এ ঘূর্ণিঝড় আগামী ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে আরো শক্তিশালী হয়ে উঠতে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার সকালে আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন জানিয়েছেন। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিটার এর মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। আগামীকাল আরো বৃদ্ধি পেতে পারে।

এই আবহাওয়াবিদ জানান, ফণী এখনও ভারতের উড়িষ্যার উপকূলে দিকে অগ্রসর হচ্ছে। তবে এর গতি পরিবর্তন হতে পারে। গতি পরিবর্তন হলে বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানার সম্ভাবনা রয়েছে। ঘূর্ণিঝড়টি যদি উড়িষ্যার উপকূলে আঘাত হানে তবে তার প্রভাবে শুক্রবার সকাল থেকে খুলনা বিভাগসহ পুরো উপকূলীয় এলাকায় বৃষ্টি হবে।

আজও দেশের বেশির ভাগ এলাকায় দাবদাহ বয়ে যাবে। মঙ্গলবার রাজধানী ঢাকাসহ টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, শরীয়তপুর, গোপালগঞ্জ, খুলনা ও বরিশাল জেলার বেশির ভাগ এলাকায় এ দাবদাহ বয়ে যাবে। এসব এলাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠতে পারে। তবে শুধু সিলেটের কিছু এলাকায় বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে।

গতকাল দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজশাহীতে ৩৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে নীলফামারীর ডিমলায় বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ৪৮ মিলিমিটার।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top