logo
logo
add image
news image

নকল আর প্রশ্নপত্র ফাঁস কী জিনিস

সেই পঞ্চাশ দশকের কোরিয়া থেকে আজকের দক্ষিণ কোরিয়া হয়ে উঠার পিছনে দুইটা ফ্যাক্টর সবচে বেশী কাজ করেছে। 
.
এক. কোয়ালিটি এডুকেশান। 
দুই. ছেলেদের জন্য বাধ্যতামূলক দু'বছর আর্মি ট্রেইনিং। 
.
পলিটিক্সে এদের অনেক কম্প্রমাইজ আছে কিন্তু এই দুইটা সেক্টরে এরা কোন কম্প্রমাইজ করেনা। আধুনিক শিক্ষা ব্যাবস্থা নিয়ে দঃ কোরিয়া এতোটাই এ্যাডভান্স যে আগামি ২০ বছর পরে যুগের সাথে তাল মিলিয়ে বাচ্চাদেরকে কী কী বিষয় পড়ানো হবে, তা এখনই সিদ্ধান্ত নেয়া আছে। 
.
নকল আর প্রশ্নপত্র ফাঁস কী জিনিস- তা এদেরকে বুঝানো অসম্ভব! কোন ছাত্রকে যোগ্য করে তোলার জন্য যা যা করা দরকার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো তাই তাই করে। 
.
তাহলে প্রশ্নপত্র ফাঁস কইরা, দেদারছে নকলের সুযোগ সুবিধা দিয়া আমাদের প্রিয় বাংলাদেশে ‘আই এ্যাম জিপিএ-ফাইভ’ ব্রিলিয়ান্ট কেন বাড়ানো হচ্ছে? এর পিছনে উদ্দেশ্য কী? ভেবেছেন কখনো? 
.
গার্মেন্টস সেক্টরে ম্যানেজারিয়াল পোস্টে এবং আইটি সেক্টরে আমাদের দেশের ছেলেদেরকে চাকুরি না দিয়া উচ্চ মূল্যে বৈদেশী ভাড়া কইরা আনা হচ্ছে। মালিক পক্ষের দাবী হলো- বাংলাদেশের ছেলেদের দক্ষতা কম, অভিজ্ঞতা নাই, জানাশুনা কম। 
.
তার মানে হইলো- আমার সন্তান নকল কইরা পাশ করবে। তারপর পাড়ায় পাড়ায় মাস্তানি করবে। ১০ বছর বেকার থাকবে। তারপর বিদেশ গিয়া কামলা খাটবে। তারপর বুড়ো বয়সে ফিরে এসে আবার ঐ রাজনীতিবিদের গোলামী করবে। 
.
অর্থাৎ এক পাল গোলাম তৈরির জন্যই প্রশ্ন পত্র ফাঁস হচ্ছে। পরিকল্পিত ভাবে নকল তৈরীর সুযোগ দেয়া হচ্ছে। আর আমি মহা খুশিতে ফাল পাড়তেছি- ‘পোলা আমার জিপিএ-পাইপ’। 
.
কী মজা কী মজা!

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top