logo
logo
news image

রোজার আগেই অস্থির নিত্যপণ্যের বাজার

রাজধানীর বাজারগুলোতে গত সপ্তাহে বেড়ে যাওয়া বেগুনের দাম আরও এক দফা বেড়ে কেজিপ্রতি ৮০ টাকায় পৌঁছে গেছে। স্বাভাবিকভাবেই এটি এখন বাজারের সব থেকে দামি সবজি। অবশ্য বেগুনের সঙ্গে যৌথভাবে এ তালিকায় রয়েছে কাঁকরোলও। : এদিকে গত সপ্তাহে অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যাওয়া কাচা পেঁপের দাম এখনও অস্বাভাবিকই রয়েছে। আগের সপ্তাহের মতো এখনো এই সবজিটি ৬০-৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। শুধু বেগুন, কাঁকরোল ও পেঁপে নয়, বাজারে এখন সব সবজির দামই চড়া। সিংহভাগ সবজির কেজি ৫০ টাকার ওপরে। ৫০ টাকা কেজির নিচে শুধু করলা ও পটোল মিলছে। সবজির দামের পাশাপাশি কিছুটা বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। তবে মরিচ, আলু, ডিম, রসুনের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। : গতকাল শুক্রবার রাজধানীর কাওরানবাজার, রামপুরা, মালিবাগ হাজীপাড়া, খিলগাঁও, সেগুনবাগিচা এবং শান্তিনগরের বিভিন্ন বাজার ঘুরে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। গত কয়েক সপ্তাহের মতো ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, বাজারে টমেটো, লাউ, উসি, করলা, পটোল, ঢেঁড়স, বরবটির সরবরাহ পর্যাপ্ত পরিমাণে রয়েছে। তবে রোজার আগে হওয়ায় এখন সব সবজির দামই চড়া। সবজির এ চড়া দামের ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা রেখেছে বেগুন ও পেঁপে। : বেগুনের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যাওয়া বিষয়ে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, কিছুদিন পরেই রোজা শুরু। আর রোজার ইফতারিতে বেগুনের চপ বাংলাদেশিদের অনেক প্রিয়। : যে কারণে রোজা আসার আগেই বেগুনের চাহিদা ও দাম বেড়ে যায়। এবারও সেটাই হয়েছে। তবে বাজারে সাদা ও লাল গোল এবং লম্বা সব ধরনের বেগুনের পর্যাপ্ত সরবরাহ রয়েছে। : রামপুরা বাজারের ব্যবসায়ী কামরুল বলেন, গত সপ্তাহে যে বেগুন ৬০ টাকা কেজি বিক্রি করেছি, আজ তা ৮০ টাকার নিচে বিক্রি করা সম্ভব হচ্ছে না। কারণ আড়তে বেগুনের দাম অনেক বেড়ে গেছে। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে সামনের সপ্তাহে দেখবেন বেগুন ১০০ টাকা হয়ে গেছে। : বেগুনের এমন দাম বাড়ছে কেন জানতে চাইলে এই ব্যবসায়ী বলেন, আর কদিন পরেই রোজা শুরু। আর রোজার সময় বেগুনের দাম বাড়া তো অস্বাভাবিক কিছু না। প্রতি বছরই রোজার সময় বেগুনের দাম অস্বাভাবিকভাবে বাড়ে। কারণ রোজার মাসে বেগুনের চাহিদা অনেক বেড়ে যায়। : খিলগাঁওয়ের ব্যবসায়ী করিম বলেন, বেগুনের অস্বাভাবিক দাম বাড়লেও বাজারে সরবরাহের ঘাটতি নেই। আড়তে গেলেই লম্বা, গোল সব ধরনের বেগুন পাওয়া যাচ্ছে। আবার দাম বাড়লেও বিক্রি কিন্তু কমেনি। : খিলগাঁও তালতলা বাজারে গত সপ্তাহে ৬০ টাকা কেজি দরে কাঁকরোল বিক্রি করা ব্যবসায়ী মো. রবিউল বলেন, কাঁকরোলের দাম আবার বেড়েছে। গত সপ্তাহে ৬০ টাকা কেজি বিক্রি করা কাঁকরোল এখন ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। অথচ আমরা ভেবেছিলাম এ সবজিটির দাম কমবে। : এদিকে গত সপ্তাহে ৩৫-৪০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া পটোলের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। তবে দাম বেড়েছে অন্যান্য সবজির। ৩৫-৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া বরবটি ও ঢেঁড়সের দাম বেড়ে ৫৫-৬০ টাকা হয়েছে। ৪০ টাকার শিম বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি দরে। : গত সপ্তাহে ২০-৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া পাকা টমেটোর দাম বেড়ে ৪০-৫০ টাকা হয়েছে। ৩০-৪০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া করলার দাম বেড়ে ৪৫-৫০ টাকা হয়েছে। অর উস্তে বিক্রি হচ্ছে ৬০-৬৫ টাকা কেজি। : দাম বাড়ার এ তালিকায় রয়েছে গাজর ও শসাও। গত সপ্তাহে ৫০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া গাজরের দাম বেড়ে হয়েছে ৬০ টাকা। আর ৩০ টাকার শসার দাম বেড়ে এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকায়। : তবে লালশাক, সবুজ ডাঁটাশাক, পাটশাক, কলমিশাক আগের সপ্তাহের মতো ৫-১০ টাকা আঁটি বিক্রি হচ্ছে। পুঁইশাক বিক্রি হচ্ছে ২০-২৫ টাকায়। একই দামে বিক্রি হচ্ছে লাউশাক। আর নতুন আসা মুলাশাক বিক্রি হচ্ছে ১০ টাকা আঁটি। : নতুন দেশি পেঁয়াজ আগের সপ্তাহের থেকে কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে ৪০-৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩০-৩৫ টাকা কেজি। আর কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ১০-১৫ টাকা পোয়া।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top